তুলশীমালা চাউলের দুধ পুলি পিঠা বানানোর সহজ পদ্ধতি

তুলশীমালা চাউলের দুধ পুলি পিঠা বানানোর সহজ পদ্ধতি

দুধ পুলি পিঠা বাঙ্গালির ঐতিহ্য। শীতের দিনে দেশে ও বিদেশে জনপ্রিয় দুধ পুলি পিঠা। খেজুরের রস বা খেজুরের গুড় দিয়ে এই পিঠা বানাতে হয়। আমি আজ আপনাদের খুব সহজে এই পিঠা বানানোর রেসিপি দিবো। এখন রেসিপি জেনে খুব সহজেই তৈরি করে খান যখন ইচ্ছা তখনই। চাইলে ছুটির দিনে নিজেই তৈরি করে ফেলতে পারেন দুধ পুলি পিঠা। জেনে নিন কীভাবে তৈরি করবেন।

উপকরনঃ (চালের কাই করার জন্য লাগবে)

উপকরনঃ (পুরের জন্য লাগবে)

  • নারকেল – ১ কাপ।
  • খেঁজুরের গুড় – ৩/৪ কাপ (নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী মিষ্টি দিতে পারো)
  • এলাচ গুড়া – ১/৪ চা. চামচ।

উপকরনঃ (দুধ পুলির গ্রেভির জন্য লাগবে)

  • দুধ – ১ লিটার।
  • গুড় – ১/৩ কাপ (নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী গুড় বাড়াতে, কমাতে পারো)
  • এলাম – ৩/৪ টা (গুড়াও দিতে পারো, আমি সবমসময় এলাচ গুড়া ইউজ করি)
  • নারকেল – সামান্য (ইচ্ছে)

প্রস্তুত প্রনালীঃ

  • প্রথমে দুধ জ্বাল দিয়ে অর্ধেক করে নাও, তারপর গুড় আর এলাচ গুড়া দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে, চুলার আঁচ কমিয়ে দাও।
  • এবার প্যানে অল্প পানির সাথে গুড় দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নাও। তারপর নারকেল দিয়ে মিডিয়াম আঁচে জ্বাল দাও আর অনবরত নাড়তে থাকো, নারকেল শুকিয়ে ঘন আর আঠালো হয়ে গেলে এলাচ গুড়া দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নামিয়ে ঠাণ্ডা হতে দাও।
  • এবার একটা প্যানে ১ কাপ পানি, ১ টে. চামচ তেল আর পরিমানমতো লবন দিয়ে বলক আসার পরে চালের গুড়া দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে ঢেকে রাখো ৭/৮ মিনিট।
  • তারপর সেই কাই ভালো করে মথে নেবে। এবার ছোট ছোট করে রুটির মতো বানিয়ে ভেতরে নারকেলের পুর ভরে ভালো করে সাইড গুলো সিল করে দেবে।
  • এখন জ্বাল দিয়ে রাখা দুধের আঁচ বাড়িয়ে বলক এলে পিঠা গুলো দিয়ে আঁচটা কমিয়ে ১০/১২ মিনিট জ্বাল দাও আর মাঝেমাঝে আলতো করে নেড়ে দেবে,নামানোর আগে ইচ্ছে করলে নারকেল কুচি দিতে পারো কিন্তু আমি দেইনি।
  • এবার সারভিং ডিশে ঢেলে নিজের মতো করে সাজিয়ে পরিবেশন করো দারুন মজার,”দুধ পুলি পিঠা”

Share this post

Comments (6)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × four =